, প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!! বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২৪০৩৭৮০, ০১৭১১৬৬৬৭৫৫
জাতীয় | আন্তর্জাতিক | খেলাধুলা | বিনোদন | রাজনীতি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | অর্থ বানিজ্য | আইন আদালত | আবহাওয়ার নিউজ | ইতিহাস | ইতিহাস ঐতিহ্য | এক্সক্লুসিভ নিউজ | কৃষি সংবাদ | চাকরির খবর | জনদুর্ভোগ | সারাদেশ | সাহিত্য সংস্কৃতি | স্মৃতিতে অম্লান | জীবন ও দর্শন | ঝালকাঠী | পিরোজপুর | বিজ্ঞান প্রযুক্তি | ভোলা

ধ্বংসস্তূপে পরিনত রাষ্ট্রভাষা বাংলা করার আন্দোলনের বীজবপণকারীর বাড়ি

আপডেট : February, 21, 2020, 11:22 pm

নিউজটি পড়া হয়েছে : 251 বার

অনলাইন ডেস্ক:
সময়ের পরিক্রমায় প্রতি বছরই ফিরে আসে ভাষার মাস ফেব্রুয়ারী। ভাষা সৈনিকদের শ্রদ্ধা জানাতে তখন চোখে পড়ে রাষ্ট্রের অনেক উদ্যোগ-আয়োজন। ভাষা সৈনিকদের অন্যতম একজন শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত। মূলত তিনিই বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার আন্দোলনের বীজবপণকারী। পাকিস্তান গণপরিষদে বাংলাকে অন্যতম রাষ্ট্রভাষা করার প্রথম প্রস্তাবকারি তিনি। অথচ বাংলার এই সূর্যসন্তানের স্মৃতিবিজড়িত একমাত্র বাড়িটি প্রশাসনের অবহেলা আর উত্তরাধিকারীদের ইতিবাচক সাড়ার অভাবে হারিয়ে যেতে বসেছে।

ভাষা সৈনিকের বাড়িটি এখন ময়লা আবর্জনায় সয়লাব। বাড়িটির দক্ষিণ পাশে হাসপাতালের বর্জ্য, অন্যপাশে নালার দুর্গন্ধযুক্ত কালো পানি, মাঝে টিনশেডের একটি ঘর, তার পেছনে জঙ্গলে ঢাকা পড়েছে চারকক্ষবিশিষ্ট ভবনটি, যা একেবারে জরাজীর্ণ! টিনশেডের ঘরটির চালও ফুটো, যেটি বৈঠকখানা হিসেবে ব্যবহার করতেন ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত। আর বর্ষা মৌসুমে একটু বৃষ্টি হলেই জমে হাঁটু পানি। চরম অযত্ন-অবহেলায় পড়ে থাকা বাড়িটির সংস্কার ও সংরক্ষণের উদ্যোগ আজও কেউ নেয়নি। ২০১০ সালে তৎকালীন তথ্য ও সংস্কৃতিমন্ত্রী বাড়িটি পরিদর্শন করে এখানে ভাষা সৈনিক ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্মৃতি জাদুঘর নির্মাণের আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু ৯ বছর পেরিয়ে ১০ বছরে পা দিলেও সেই আশ্বাস পূরণে আর কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি সরকারের পক্ষ থেকে। কুমিল্লা নাগরিক ফোরাম, সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিদের দাবি এই ভাষা সৈনিকের স্মৃতিরক্ষার্থে বাড়িটি সংস্কার, সংরক্ষণ করে ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত জাদুঘরে রূপান্তর করা হোক।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেল, কুমিল্লা নগরীর ঝাউতলা ধর্মসাগরের পশ্চিমপাশে ভাষা সৈনিকের সেই বাড়িটি একেবারেই বসবাসের অনুপযোগী। বাড়িতে ঢুকতেই চায়ের দোকান, বৈঠকখানার টিনশেডের ঘরটিতে রয়েছে মোট ছয়টি কক্ষ, যার দুইটি কক্ষে প্রায় ১৩ বছর ধরে পরিবার নিয়ে বসবাস করেন সুজন মিয়া নামে একজন। তিনি মারা যাওয়ার পর তার স্ত্রী জাহানারা বেগম এবং ছেলে রিপন মিয়া তার পরিবার নিয়ে বর্তমানে সেখানে বাস করছেন। তারা মূলত কেয়ারটেকার হিসেবে এই বাড়িতে আছেন। পেছনের বাকি ৪টি কক্ষে পঁচাপানি, ময়লা-আর্বজনায় পরির্পূণ। দেয়ালের ইটগুলো খসে খসে পড়ছে। বাড়ির বাইরের দিকটাও ময়লা-আর্বজনার স্তূপে পরিপূর্ণ। বিভিন্ন ময়লা-আবর্জনা ও জঙ্গলে চারটি কক্ষ ঢাকা পড়েছে। ভাষা সৈনিক ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত যে কক্ষে ঘুমাতেন সেখানে তাঁর শোবার খাটটি এখনো রয়েছে, রয়েছে তাঁর বালিশ। আরো আছে খাওয়ার প্লেট, পানির গ্লাস, গায়ের কাঁথা। এগুলো কিছুই সংরক্ষণের ব্যবস্থা নেই। পড়ে আছে এদিক-সেদিক। বাড়ির সামনে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত নামের সাইনবোর্ডটিও ভেঙে পড়ে গেছে। পুরো বাড়িটিই এখন ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। ফলে এই সূর্যসন্তানের স্মৃতি এখন নিঃশেষ হওয়ার পথে।

স্থানীয় বিশিষ্টজনেরা জানান, তৎকালীন তথ্য ও সংস্কৃতিমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ ২০১০ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর বাড়িটি পরিদর্শন করেন। তিনি চারদিক ঘুরে বাড়িটির সার্বিক পরিবেশের দুরবস্থা দেখে তখন হতাশা ব্যক্ত করেন। পরিদর্শন শেষে ভাষা সৈনিক ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্মৃতি জাদুঘর নির্মাণের কাজ খুব শিগগির শুরু হবে বলে আশ্বাস দেন। কিন্তু সে আশ্বাস আশ্বাসই থেকে গেছে, বাস্তবায়ন হয়নি।ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের নাতনি একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার (এনজিও) কর্মকর্তা অ্যারোমা দত্ত বলেছিলেন, এখানে ১৫ শতক জায়গা রয়েছে। জাল-দলিল করে জনৈক ব্যক্তি ওই জায়গার মালিকানা দাবি করেন। এরপর সেটা নিয়ে মামলা হয়। এ জায়গাটিই আমাদের একমাত্র সম্বল। এখানে উঁচু দালান করে এর প্রথম ও দ্বিতীয় তলায় শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্মৃতি জাদুঘর করতে চাই। বাকিগুলো নিজেদের কাজে ব্যবহার করবো।

মুঠোফোনে তিনি আরো বলেন, ভাষা আন্দোলনের প্রথম বীজ বপণকারী ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত। যিনি পাকিস্তান গণপরিষদে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার প্রথম প্রস্তাবকারী। এমনকি তিনি পাকিস্তান সরকারের রোষানলে পড়ে বহুবার কারাবরণ করেন। পরে ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি মিলিটারিদের হাতে পুত্রসহ তার মৃত্যু হয়। আমরা এখনো তার লাশ পাইনি। যিনি দেশের জন্য এতোকিছু করেছেন পারলে সরকার তার জন্য কিছু করুক।

কুমিল্লার বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শাহাজান চৌধুরী বলেন, বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার প্রথম প্রস্তাবকারী যিনি পাকিস্তানি মিলিটারিদের হাতে নির্যাতিত হয়ে মারা গেছেন কুমিল্লার সেই সূর্যসন্তান শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের স্মৃতিবিজড়িত বাড়িটাও হারাতে বসেছি আমরা। এই বাড়ির উত্তরাধিকারীদের একমাত্র সম্পদ যেহেতু বিলিয়ে দিতে নারাজ, সেহেতু সরকার তাদের কাছ থেকে কিনে নিতে পারে বাড়িটি। বিকল্প হিসেবে অন্য কোনো স্থানে এমন কিছু করা হোক যেন আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তকে স্মরণ করতে পারে।

সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) কুমিল্লা জেলা সাবেক সভাপতি আলী আকবর মাসুম বলেন, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ধীরেন্দ্রনাথ দত্তকে ভুলতে বসেছে। অযত্ন-অবহেলায় পড়ে থাকায় একমাত্র বাড়িটিও সংস্কার ও সংরক্ষণের অভাবে হারাতে বসেছি। স্মৃতিরক্ষার্থে যে কোন মূল্যেই হোক শচীন দেবের বাড়ির মতো সংস্কার করে ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের বাড়িটিও সংরক্ষণ করার দাবি জানান তিনি।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের বাড়িটি ব্যক্তি মালিকানা। যদি সরকারি সম্পত্তি হতো, তাহলে আমরা জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে কিছু করতে পারতাম। এখনো তাদের ওয়ারিশ বেঁচে আছেন। তারা যদি সরকারকে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের সম্পত্তি দান করে, তাহলে সরকার তার স্মৃতিরক্ষার্থে জাদুঘরসহ আরো ভালো কিছু করতে পারবে।

উল্লেখ্য, ১৯৪৮ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান গণপরিষদে কুমিল্লার এই সাহসি সন্তান ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত সর্বপ্রথম বাংলাকে ‘রাষ্ট্রভাষা’ করার দাবি উত্থাপন করেন। এতে তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের রোষানলে পড়ে তিনি বহুবার কারাবরণ করেন। পরে ১৯৭১ সালের ২৯ মার্চ গভীর রাতে নিজ বাড়ি থেকে পাকিস্তানি মিলিটারিরা পুত্র দিলীপ দত্তসহ তাকে কুমিল্লা সেনানিবাসে ধরে নিয়ে যায়। সেখানে ৮৫ বছর বয়সি এই দেশপ্রেমিক রাজনীতিকের ওপর চালানো হয় অমানবিক নির্যাতন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পরও তার মৃতদেহ খুঁজে পাওয়া যায়নি।

 

Share with your friends

এখানে মন্তব্য লিখুন ...

প্রধান সম্পাদক: টি এম এ হাসিব
প্রধান  নির্বাহী সম্পাদক: মোঃ সুমন ফরাজী
প্রকাশক: মোকলেসুর রাহমান মনি
বার্তা ভবন: লুকাস কম্পাউন্ড, সদর রোড, বরিশাল।
মোবাইল: ০১৭১২৪০৩৭৮০/ ০১৭১৭১৯৬৯৭৮
ইমেইল: banglarbaninews24@gmail.com

শিরোনাম :
★★ বরগুনায় কোরবানির পশুর চামড়ার বাজারে ধস ★★ বরিশালে বজ্রপাতে নদীতে পড়ে পেয়ারা ব্যবসায়ী নিখোঁজ ★★ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে অনলাইনে ‘বঙ্গবন্ধু অলিম্পিয়াড ★★ কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে বেড়েছে পর্যটকদের আনাগোনা ★★ বরিশালে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত ★★ দেশে এক দিনে করোনায় মৃত্যু ৫০, নতুন শনাক্ত ১৯১৮ ★★ চরফ্যাসনে ইমামকে মারধরের অভিযোগে আটক ১ ★★ শুধু মেধার স্বাক্ষর রাখলেই হবে না, রাষ্ট্রের উপকারে আসতে হবে -বিএমপি কমিশনার ★★ বরিশালে মসজিদ কমিটিকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ যুবলীগ সম্পাদকসহ আহত ৫ ★★ বরিশালে যাত্রীবাহী ৫ লঞ্চকে জরিমানা